Breaking News
Home / Health / শিশুর জ্বর নিয়ে যত ভূল

শিশুর জ্বর নিয়ে যত ভূল

অধিকাংশ ইনফেকশন জনিত রোগের ক্ষেত্রেই জ্বর হচ্ছে অন্যতম উপসর্গ।

অনেকেরই হয়তো জানা আছে জ্বর কোন রোগ নয়, জ্বর হচ্ছে রোগের একটি উপসর্গ। এই জ্বর নিয়ে ভুল ধারণা অনেক। শিশুদের জ্বর নিয়ে প্রায় সবাই টেনশনে থাকেন।অনেকের ধারণা সব জ্বরই শিশুদের জন্য খারাপ। এই ধারণার পুরোটা ঠিক নয়।শরীরে কোন ইনফেকশন এর শুরুতেই রোগ প্রতিরোধক তন্ত্রের প্রাথমিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দেখা দেয় এই জ্বর। সেই অর্থে জ্বর হচ্ছে রোগ প্রতিরোধেরই একটি অংশ। জ্বর এর মাধ্যমেই ইনফেকশনের বিরুদ্ধে লড়াই করে শরীর। অধিকাংশ জ্বরই শিশুদের জন্য ভালো, তবে জ্বর যখন একটানা দির্ঘায়ীত হয় তখন বুঝতে হবে ইনফেকশন এর কাছে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা পরাস্ত হচ্ছে। জ্বরের জন্য সবসময়ই ওষুধ গ্রহণের দরকার নেই।

জ্বরের কারণে অস্বস্তি হলে জ্বর কমানোর ঔষধ যেমন প্যারাসিটামল গ্রহণ করা যেতে পারে তবে সাধারণত ১০২-১০৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট জ্বর উঠলে শরীরে অস্বস্তি বোধ হয়। সব জ্বরের জন্য চিকিৎসার প্রয়োজন নেই। অনেকের ধারণা জ্বর হলেই চিকিৎসা নিতে হবে। এ ধারণা কিন্তু ঠিক নয়। কি কারনে জ্বর হয়েছে, জ্বর এর পেছনে কি ধরনের জীবাণু জড়িত রয়েছে তার ওপরই নির্ভর করে জ্বরের চিকিৎসা। কথায় আছে ভাইরাসজনিত জ্বর ওষুধের এক সপ্তায় শারে, আর না খেলে সাড়ে সাত দিনে। অর্থাৎ ভাইরাসজনিত জ্বর এমনিতেই সেরে যায়। এর জন্য বিশেষ চিকিৎসা মানে অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের কোনো প্রয়োজন নেই। ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ জনিত কারনে জ্বর হলে সে ক্ষেত্রে যথার্থ অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণের দরকার রয়েছে।

অনেকেরই রোগের কারণ না খুঁজে এবং সেই কারণ অনুসারে চিকিৎসা না করে শুধু জ্বর কমানোর জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েন। আসল কথা হচ্ছে জ্বর কমানোর চেয়ে রোগের কারণ অনুসন্ধান করে তার চিকিৎসা করাটাই কিন্তু সমীচীন। প্রকৃত রোগ সেরে গেলেই জ্বর সেরে যাবে। কারো কারো ধারণা জ্বর হলে ভাত খাওয়া যাবে না। প্রকৃতপক্ষে এই ধারণার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। জ্বর হলে শুধু ভাত কেন প্রায় সব খাবার খাওয়া যায়। জ্বর হলে রোগীর শরীর লেপ-কাথা দিয়ে জড়িয়ে রাখেন অনেকেই, উদ্দেশ্য জ্বর কমানো। কিন্তু এই পদ্ধতির ফলে জ্বর কমে না।

জ্বর কমানোর জন্য কুসুম গরম পানিতে ভেজানো তোয়ালে বা গামছা চিপে তা দিয়ে শরীর মুছে দেয়া উচিত। এভাবে কিছুক্ষণ করতে থাকলেই জ্বর কমে আসবে। অনেক সময় অনেক সাধারন বিষয়ের প্রতি শরীরের প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসেবেই জ্বর হতে পারে। তাই জ্বর হলে প্রথমেই এন্টিবায়োটিক গ্রহণ করা ঠিক নয়। জ্বর হলে অপেক্ষা করে লক্ষ করতে হবে জ্বরের গতিবিধি। মনে রাখতে হবে জ্বর কোন রোগ নয়, রোগের উপসর্গ মাত্র।

লেখকঃ ডাঃ সজল আশফাক।

About dolonkhan100

Check Also

ফর্মুলা মিল্ক বা কৌটা দুধে শিশুর স্বাস্থ্য ঝুঁকি

আজকাল দেখা যায় মায়েরা তাদের বাচ্চা কে বুকের দুধ খাওয়ানর পরিবর্তে কৌটার দুধের উপর বেশি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *