Breaking News
Home / Education / বিসিএস ম্যারাথনঃবিসিএস প্রত্যাশিদের জন্য সেরা দিকনির্দেশনা!

বিসিএস ম্যারাথনঃবিসিএস প্রত্যাশিদের জন্য সেরা দিকনির্দেশনা!

@তোয়াহা ইয়াসীন হোসেন পুলিশ ক্যাডার ,৩৮ তম বিসিএস। সাদিক স্যার একটা কথা বিভিন্ন স্থানে বলতেন- ”বিসিএস ধৈর্যশীল মেধাবীদের জন্য।” কথাটির সত্যতা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি। একটা বিসিএস পরীক্ষায় বিজ্ঞপ্তি থেকে নিয়োগ হতে প্রায় ৪ বছর লাগে। তাই যারা সামনের দিনে পরীক্ষা দিবেন, তারা এই বিষয়টি অবশ্যই বিবেচনা করবেন। এসময়ে আপনার অনেক বন্ধুবান্ধব অন্য চাকরিতে হয়তো একটা প্রমোশন পেয়ে যাবে, কেউ কেউ হয়তো উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে চলে যাবে- এ সবকিছু মেনে নিয়েই আপনাকে এগিয়ে যেতে হবে।

পিএসসি(সরকারি কর্ম কমিশন) আপনাকে যতবারই সুপারিশ করুক না কেন, যতক্ষণ জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে আপনাকে মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে নিয়োগ না দেয় ততক্ষণ আপনার আসলে কিছুই করার নেই। পিএসসির সুপারিশের পরেও নিয়োগ হতে বেশ কয়েক মাস লাগে। আর যারা সুপারিশ*প্রাপ্ত হন, তাদের মধ্যে থেকে কেউ কেউ আবার চূড়ান্ত নিয়োগ পান না। এই সময়টা অসহনিয়, কারণ সমাজের বেশিরভাগ লোকেরই বিসিএস এর নিয়োগের এই দীর্ঘ প্রক্রিয়া সম্পর্কে ধারণা নেই। তাদের কথা – ”এতোদিন লাগবে কেন?’’ এমনকি তারা আপনার দিকে সন্দেহের দৃষ্টিতে তাকাতে শুরু করবে।

কাউকে নিরাশ করার জন্য বলছিনা- তবে বিসিএস পরীক্ষা বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রতিযোগিতা;পূর্ণ চাকরির পরীক্ষা, তাই একজন প্রতিযোগীর ব্যর্থ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। তাই বিসিএস প্রস্তুতির সাথে অন্যান্য চাকরির পরীক্ষাতেও অংশগ্রহণ করুন। অন্য চাকরি করার পাশাপাশিও আপনি বিসিএস প্রস্তুতি নিতে পারেন, যদিও আমি সেটা করিনি। মাস্টার্স পরীক্ষা শেষ হতেই একটি বেসরকারি ব্যাংকে MTO পদে চাকরি পাই, তবে বিসিএস লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য আমি জয়েন করিনি। আবার ৪০তম বিসিএস এর লিখিত পরীক্ষার কিছুদিন আগে একটি সরকারি ব্যাংকের অফিসার পদে চাকরি পাই, সেটাতেও যোগদান করিনি। আবার অনেকেই আছে কঠিন ব্যস্থতার চাকরি করেও পরীক্ষা দিয়েছে এবং সফল হয়েছে। সবার পরিবার থেকেও এইরকম সাপোর্ট থাকে না।

আমার পরামর্শ হচ্ছে, “কাউকে অন্ধভাবে অনুকরণ করবেন না। কারণ প্রতিটি মানুষের শক্তি ও দুর্বলতা এক নয়। ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালাম স্যার যেমনটি বলতেন- ”Don’t read success stories. You will get only message. Read failure stories. You will get some ideas to get success.”। তেমনি এই দীর্ঘ যাত্রায় বহু সফল, ব্যর্থ ও হতাশ ব্যক্তির সহচর্য পাবেন। সবার কথা শুনবেন, তবে আপনি নিজ অবস্থা বিবেচনা করে পদক্ষেপ নি।।
বিসিএস একটা ম্যারাথন। হঠাৎ করে অন্যদের দেখে ম্যারাথনে যোগ দিলে সেটাতে সফল হওয়া তো দূরের কথা, আপনি বড় চোট পেতে পারেন। শুরু থেকেই শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে হলে অবশ্যই লক্ষ্য ঠিক করে, মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে আসুন।

আপনার দীর্ঘ বন্ধুর বিসিএস যাত্রায় ‘দ্যা এলকিমিস্ট’ বইয়ে পাউলো কোয়েলহোর লেখা একটা কথা মনে রাখবেন- ”When your heart truly desire something, the whole universe conspires to help you achieve that thing”। মহান সৃষ্টিকর্তা কৃপণ নয়। আপনি আপনার চেষ্টায় কার্পণ্য না করলে সফলতা আসবেই।
( কাউকে জ্ঞান দেয়ার যোগ্যতা আমার নেই। বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতির সময় বিভিন্ন Facebook গ্রুপ থেকে আমি অনেক উপকৃত হয়েছি। তাই আমার সীমিত অভিজ্ঞতা থেকে যারা নতুন বিসিএস পরীক্ষার্থী আছেন তাদের জন্য বিসিএস পরীক্ষার কিছু কঠিন দিক তুলে ধরছি। মুঠোফোনে বাংলা লেখায় আমি দুর্বল। ভুল-ত্রুটির জন্য আগেই ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।)

তথ্যসূত্রঃ ফেসবুক থেকে সংগ্রিহূত

About admin

Check Also

গুগলে ডাক পেলেন বাংলাদেশি আদ্রীকা, বার্ষিক বেতন ১ লাখ ডলার

গুগলের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব পেয়েছেন বাংলাদেশের আদ্রীকা খান। বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জের আলী ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.